টেকনিক্যাল ও পলিটেকনিকগুলোতে ১২৬০০ পদে নিয়োগ দেবে সরকার

টেকনিক্যাল ও পলিটেকনিকগুলোতে ১২৬০০ পদে নিয়োগ দেবে সরকার

দেশে কর্মমুখী শিক্ষার প্রসারে টেকনিক্যাল কলেজ ও পলিটেকনিকগুলোতে আগামী তিন অর্থবছরে প্রায় ১২ হাজার ৬০৭ পদে নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। দেশে ও বিদেশে ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণে দক্ষ জনশক্তি তৈরির লক্ষ্যে সরকার প্রথমবারের মতো কারিগরি প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য ক্যাডার পদ তৈরি করেছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. ওমর ফারুক বাসসকে বলেন, মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করতে এবং কর্মসংস্থানমুখী শিক্ষার উন্নয়নে ৪৯টি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের জন্য মোট ১ হাজার ৬১টি ক্যাডার পদ তৈরি করা হয়েছে। দেশে ও বিদেশে বর্তমান চাকরির বাজারে দক্ষ জনশক্তি তৈরিতে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার উন্নয়নে সরকারের অগ্রাধিকারের অংশ হিসেবে এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

ওমর ফারুক বলেন, সরকার প্রতিটি উপজেলায় একটি কারিগরি স্কুল ও কলেজের জন্য একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে এবং ১০০টি নতুন কারিগরি প্রতিষ্ঠান স্থাপনের কাজ চলছে।

বর্তমানে দেশে ১১৩টি সরকারি কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে, এর মধ্যে ৪৯টি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট ও ৬৪টি কারিগরি কলেজ এবং দেশে ৪ হাজার ৭২৭টি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

১০৬১টি ক্যাডার পদ

কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে তীব্র জনশক্তিসংকট কমাতে সরকার এসব পদ তৈরি করছে। ১১৩টি কারিগরি স্কুল, কলেজ ও পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট নিয়োগের জন্য ১২ হাজার ৬০৭টি পদের মধ্যে ১ হাজার ৬১টি ক্যাডার পদ। কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের অধীন ৪৯টি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের জন্য পাঁচটি বিভাগের ক্যাডার পদ তৈরি করা হচ্ছে।

১২ হাজার ৬০৭ পদের মধ্যে বাকি ১১ হাজার ৫৪৬টি পদ নন-ক্যাডার। পদগুলোর মধ্যে ভাইস প্রিন্সিপালের পদ আছে ২০টি। ভাইস প্রিন্সিপালরা ২০১৫ সালের জাতীয় বেতন স্কেল গ্রেড-৫ অনুসারে নিয়োগ পাবেন। ১৬৯ জন প্রধান প্রশিক্ষক (গ্রেড-৬), ৫৭ জন প্রধান প্রশিক্ষক (নন-টেকনিক্যাল, গ্রেড-৬), ৫১০ জন প্রশিক্ষক (গ্রেড-৯) এবং ৩০৫ জন প্রশিক্ষক (গ্রেড-৯) নিয়োগ পাবেন।

ইউএনবির খবরে বলা হয়েছে, পদ সৃষ্টির সরকারি আদেশ জারির জন্য প্রয়োজনীয় সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। সম্প্রতি এ প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্মতি দিয়েছেন।

ওমর ফারুক বলেন, ২০২০-২১, ২০২১-২২ ও ২০২২-২৩ তিনটি অর্থবছরে প্রায় ১২ হাজার পদে নিয়োগ করা হবে। স্কুল ও কলেজগুলোতে তাৎপর্যপূর্ণ জনবলসংকট নিরসনের জন্য সরকার পদ তৈরি করছে। কারণ, বর্তমানে প্রয়োজনীয় জনশক্তির এক-তৃতীয়াংশ ইনস্টিটিউট পরিচালিত হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, পদ সৃষ্টির মাধ্যমে নিয়োগের পর শিক্ষার মান ও ভর্তির হার বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে। ১১৩টি সরকারি ইনস্টিটিউটের জন্য বিপুলসংখ্যক পদ তৈরির সরকারি আদেশ জারি করার জন্য ইতোমধ্যে সব প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।

এর আগে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় মোট ১৩ হাজার ৭২টি পদ (স্থায়ীভাবে ১ হাজার ২৪৪টি ক্যাডার পদ এবং ১২ হাজার ৭২৮টি নন-ক্যাডার পদ অস্থায়ী ভিত্তিতে) তৈরির প্রস্তাব অনুমোদন করে। পরবর্তী সময়ে অর্থ বিভাগ রাজস্ব খাতে ১২ হাজার ৬০৭টি পদ (১ হাজার ৬১টি ক্যাডার পদ এবং ১১ হাজার ৫৪৬টি নন-ক্যাডার পদ) তৈরি করতে সম্মত হয়। অর্থ বিভাগও পদগুলোর জন্য বেতন স্কেল নির্ধারণ করেছে বলে জানা গেছে।

  সূত্র: প্রথম আলো

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *